477 Views

পথ প্রদর্শক বলতে আমরা এমন একজন ব্যক্তিকে বুঝি যিনি মানুষের জীবনে সাফল্যের পথ দেখিয়ে দেন। সর্বাধিক সফল ব্যক্তিদের সফলতার পেছনে কারো না কারো অবদান থেকেই যায়। যাদের অনুপ্রেরণার মাধ্যমে তারা আজ সফলতা লাভ করেছেন। যেমন: মহান বিজ্ঞানী এডিসনের একমাত্র অনুপ্রেরণার উৎস ছিলো, ‘তাঁর মা’।  

 

ছোটবেলায় পরিবার থেকে আমরা নম্রতা, ভদ্রতা, ধর্মীয় অনুশাসন ইত্যাদি নিত্য প্রয়োজনীয় সকল বিষয় শিখে থাকি। এক্ষেত্রে পরিবার আমাদের দিক-নির্দেশনা দিয়ে থাকে। অর্থাৎ পরিবার আমাদের প্রশিক্ষক হিসেবে কাজ করে। পরবর্তিতে স্কুল, কলেজ এবং ইউনিভার্সিটি লাইফে পর্যায়ক্রমে কিছু মানুষ প্রতিনিয়ত আমাদের পথ প্রদর্শকের ভূমিকা পালন করেন। ঠিক তেমনি জীবনে সফল হতে হলে প্রশিক্ষকের ভূমিকা অনস্বীকার্য। বর্তমানে আপনার সাহায্যকারী সকল ব্যক্তির কাছ থেকে প্রাথমিক যেই উপদেশটি শুনতে পাবেন তা হলো প্রশিক্ষক, পরামর্শদাতা বা ভূমিকা মডেলটি সাফল্যের দ্রুততম উপায় যা আপনার লক্ষ্য অর্জনে সাহায্য করবে। টনি রবিন্স, ব্রায়ান ট্রেসির মতো অসংখ্য বিখ্যাত ব্যক্তিরা একই উপদেশটি দিয়েছেন। কারণ, একজন প্রশিক্ষক আপনাকে আপনার লক্ষ্য এবং স্বপ্নগুলো বুঝতে সহায়তা করবে। প্রশিক্ষণের সৃষ্টি হয় একজন প্রশিক্ষকের সাথে আপনার অংশীদারিত্বের জন্য, যাতে আপনি তার থেকে আপনার ব্যক্তিগত অথবা কর্মজীবনের লক্ষ্যে পরামর্শ এবং উৎসাহ পেতে পারেন।

 

ওপরাহ উইনফ্রে, লিওনার্দো ডি ক্যাপ্রিও এবং সেরেনা উইলিয়ামসের মতো বিখ্যাত ব্যক্তিদেরও পথ প্রদর্শক আছে। কেননা বুদ্ধিমান ব্যক্তিরা সবসময় মনে করে তারা খুব কম জানেন। তাই তাঁরাও তাদের জীবনে পথ প্রদর্শক খুঁজে নিয়েছেন। একজন পথ প্রদর্শক একটি জীবন পরিবর্তনে অংশীদারিত্ব প্রদান করেন যা মানুষকে তাদের সম্ভাব্যতা অর্জনে সাহায্য করে। ঠিক তেমনি আমাদের প্রত্যেকের জীবনকে এগিয়ে নিতে হলে পথ প্রদর্শক, পরামর্শদাতা বা প্রশিক্ষকের ভূমিকা অনেক বেশি। প্রত্যেকটি মানুষের জীবনে কিছু মানুষ পথ প্রদর্শক হিসেবে কাজ করে। আপনি যেই মানুষটা থেকে সামান্য পরিমান অনুপ্রেরণা পাবেন, গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ পাবেন সেই মানুষটা তাৎক্ষণিকভাবে আপনার পরামর্শদাতার ভূমিকা পালন করবে।  

 

জীবনকে সফলতার শীর্ষে পৌঁছানোর জন্য যে কারণে একজন পথ প্রদর্শক প্রয়োজন- 

 

জীবনের উদ্দেশ্য খোঁজা

 

আমরা আমাদের জীবনের কাছ থেকে কী চাই সেটাই যদি জানতে না পারি, তাহলে সহজেই বিভ্রান্ত হয়ে যাই। যখন নিজেকে প্রশ্ন করি, ‘আমার জীবনের উদ্দেশ্য কী? আমার কাছে কী গুরুত্বপূর্ণ? কেন গুরুত্বপূর্ণ?’ বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই উত্তর হয় ‘বিভিন্ন কারণে উদ্দেশ্যে পরিবর্তন আসতে পারে’। কিন্তু এভাবে জীবনকে এগিয়ে নেওয়া সম্ভব না। সর্বপ্রথম আপনাকে জানতে হবে এই উদ্দেশ্য সম্পর্কে। সেক্ষেত্রে একজন পরামর্শদাতা আপনার পথ প্রদর্শক হিসেবে কাজ করতে পারে। সে হতে পারে আপনার বাবা-মা, বন্ধু-বান্ধব, প্রোফেশনাল কোনো কোচ অথবা পরামর্শদাতা। আপনার জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ উদ্দেশ্য লাভের জন্য, কর্ম সম্পাদনের যোগ্যতা অর্জনের জন্য একজন পথ প্রদর্শক আপনাকে বিভিন্নভাবে সাহায্য করবে। যেমন: সফল ব্যক্তিগুলো তাঁদের ‘মানসিক স্বাস্থ্যবিধি’ তে অনেক সময় ব্যয় করেন। কারণ, চ্যালেঞ্জ এবং ব্যর্থতা মোকাবেলা করার জন্য মানসিক শক্তির বিকাশে কী করা লাগে তা তাঁরা জানেন। ঠিক তেমনি উদ্দেশ্য নির্বাচন করার জন্য কেমন কৌশল প্রয়োগ করা উচিত সেই সম্পর্কে আপনাকে জানতে হবে।

 

Womacks বলেছেন, “আপনার লক্ষ্য অর্জনের জন্য আপনাকে কী করতে হবে তা আপনাকে দেখিয়ে দিতে পারে এমন মানুষ খুঁজুন (এবং সময় ব্যয় করুন)।”

 

জীবনের উপর স্পষ্টতা অর্জন

 

জীবনের স্পষ্টতা বলতে বোঝায় জীবন অথবা জীবনের লক্ষ্য সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা। আমরা অনেকেই এই বিষয়ে সঠিক ধারণা রাখতে পারি না। আমরা বুঝতে পারি না আমরা ঠিক কতটুকু পারবো, আর কতটুকু পারবো না। মোটকথা, আমরা আমাদের ক্ষমতা সম্পর্কে সম্পূর্ণ ধারণা রাখতে পারি না। তাই আমরা না বুঝে অস্পষ্ট সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলি। যার ফলে আমাদের পড়তে হয় বিভিন্ন সমস্যায় এমনকি ক্ষেত্রবিশেষে লক্ষ্যার্জনেও ব্যর্থ হতে হয়। তাই জীবনের স্পষ্টতা অর্জন একান্ত জরুরী। একজন পথ প্রদর্শক আমাদের সেই সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে। তিনি আপনার লক্ষ্য সম্পর্কে স্পষ্টতা অর্জনে আপনাকে আশা দেখাতে পারেন। তিনি তার অভিজ্ঞতা অনুযায়ী যেই পরামর্শগুলো দিবেন সেই অনুযায়ী এগিয়ে গেলে আপনার ব্যর্থ হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। তাই অপরাহ উইনফ্রে বলেছেন, “একজন পরামর্শক এমন কেউ হবে, যিনি আপনাকে নিজের ভিতরে আশা দেখতে পারবেন।”

 

আপনি যদি ভেবে থাকেন, প্রত্যেকটা মানুষ জানে যে তারা জীবন থেকে কী চায়, তাহলে আপনি ভুল ভাবছেন। মানুষের সামনে অনেকগুলো উদাহরণ এবং সুযোগ খোলা থাকে। তারা সেটা অর্জনের তাড়নায় প্রায়ই এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে যা তাদের চূড়ান্ত লক্ষ্য অর্জনে সহায়তা করে না। সেক্ষেত্রে একজন পথ প্রদর্শক আপনাকে অগ্রাধিকার নির্বাচন করতে সাহায্য করবেন। তিনি আপনাকে জীবন নিয়ে চিন্তা করার জন্য অনুপ্রেরণা দিবেন যাতে আপনি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নির্ধারণ করতে পারেন। স্পষ্টতা একটি চমৎকার শক্তি যা আপনাকে দ্রুত আপনার কাজ সম্পাদন করতে সাহায্য করে। এটি আপনার জীবনের লক্ষ্যে পৌঁছানোর মূল কেন্দ্রবিন্দু।

 

সময় সংরক্ষণ করা

 

সময় জীবনের সবচেয়ে মূল্যবান একটি বিষয়। জীবনকে সঠিকভাবে সাজাতে হলে সময়ের সদ্ব্যবহার করা অত্যন্ত জরুরি। কথায় আছে, ‘সময় ও স্রোত কারো জন্য অপেক্ষা করে না’। তাই জীবনের সফলতার সময়ে যদি পরিশ্রমী না করে সময় নষ্ট করেন তাহলে নির্দিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছাতে অনেক কষ্ট পেতে হবে। যদিও সফল হওয়ার কোনো নির্দিষ্ট বয়স নেই, কিন্তু সেই সফলতা পাওয়ার জন্য তরুণ বয়স থেকেই পরিশ্রম করে যেতে হয়। কেননা, একজন তরুণের যতটুকু শক্তি, সামর্থ্য, মনোবল ও আকাঙ্খা থাকে, পরবর্তীতে তা আর থাকে না। তাই লক্ষ্যে পৌঁছাতে হলে সেই বয়সটাকে কাজে লাগাতে হয়। এছাড়াও মানুষ যখন সামঞ্জস্যপূর্ণ প্রচেষ্টা সত্ত্বেও ব্যর্থ হয়, তখন তারা আরো সময় পেতে চায়। যাতে তারা আবার নতুন উদ্যমে কাজটি করতে পারে। তাই যত তাড়াতাড়ি কাজটি করা শুরু করবে ততো বেশি জীবনকে গোছানোর সুযোগ পাবে। কথায় আছে, ‘ব্যর্থতার পরেই সফলতার দেখা মেলে’।

 

আবার, আপনি যদি দ্রুত লক্ষ্য অর্জন করতে চান তখন আপনাকে নানা সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়। কেননা তাড়াহুড়ো করে কোনো কিছু করলে ফলপ্রসু হয় না। এছাড়া আপনি যদি কাজটি একা করার সিদ্ধান্ত নেন, তখন আপনার নিজের কাছে অতিরিক্ত দায়িত্ব এসে পড়বে। যার ফলে আপনি এটা নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হবেন না। তাই আরো সময় নিয়ে ধীরেসুস্থে কাজ করা উচিত। আমাদের প্রায়ই কষ্টের সম্মুখীন হতে হয়। যখন আমরা একটি চ্যালেঞ্জিং সময়ের মধ্য দিয়ে যাই, তখন কারো সমর্থন ও পরামর্শ আশা করি। কারণ, সেই মুহূর্তে এটা সবচেয়ে বড় সাপোর্ট হিসেবে কাজ করে। আমরা যদি দীর্ঘদিন ধরে ক্রমাগতভাবে সমস্যাগুলির মুখোমুখি হই, তাহলে আরো বেশি ভুল করার সম্ভাবনা থাকে। এক্ষেত্রে পরামর্শদাতা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তিনি আপনার সমস্যাগুলোকে গভীরভাবে গবেষণা করেন এবং সমাধানের পথ খুঁজে বের করেন। সেই সাথে আপনাকে বুঝিয়ে দেয় চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবিলা করার মাধ্যমে কীভাবে দক্ষতা অর্জন করা যায়। যার ফলে আপনার সময় সঞ্চয় হবে, সাথে আপনার লক্ষ্যও বাস্তবায়ন হবে।

 

নতুন উদ্ভাবনী ধারণা দেয়া

 

Womacks বলেছেন, “একজন পরামর্শদাতা এমন একজন ব্যক্তি যিনি ব্যবসায় বা জীবনে অভিজ্ঞতার সাথে নতুন কিছু করার প্রস্তুতি নেওয়ার সময় আপনাকে আপনার দক্ষতা বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করতে পারেন।”

 

পরামর্শদাতারা আপনাকে নৈতিক সমর্থন করবে এবং নতুন কিছু উদ্ভাবনের ধারণা দিবে। পরামর্শদাতা এমন একজন ব্যক্তি যিনি আপনাকে থামতে দেবেন না। বরং আপনার দক্ষতা, আত্মবিশ্বাস এবং দৃঢ়তা অনুযায়ী উৎসাহ ও নির্দেশনা প্রদান করবেন। আপনার দৃষ্টিভঙ্গিকে প্রভাবিত করার অনুপ্রেরণা দিবেন এবং আপনাকে আপনার লক্ষ্যার্জনে মানসিকভাবে এগিয়ে দিবেন।

 

মনে রাখবেন, এখন আমরা যেটাকে ভালো পরামর্শ বলে মনে করছি সেটিও একজন ব্যক্তির সাহসী মনোভাবের ফল। তাঁরা নিজ থেকে যেই সামান্য পরামর্শ দিয়েছে তা এখন আমাদের কাছে অনেক গুরুত্ববহ। ঠিক তেমনি, আজকে যদি আপনি যোগ্যতাসম্পন্ন কোনো উদ্ভবনী পরামর্শ দিতে পারেন পরবর্তী প্রজন্মের কাছে সেটিও একটি গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ বলে বিবেচিত হবে।

 

অর্থ সংরক্ষণ করা

 

ভুল আর্থিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ আপনার কর্মজীবনকে উল্ল্যেখযোগ্যভাবে প্রভাবিত করতে পারে। মানুষ যখন উচ্চাকাঙ্ক্ষা দ্বারা পরিচালিত হয়, তখন তারা প্রায়ই তাদের আর্থিক পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করতে এবং বিনিয়োগগুলি কার্যকর করতে ভুলে যায়, যা ভবিষ্যতের জন্য তাদের কোনো লাভ দেয় না। জীবনে প্রশিক্ষকের সৃষ্ট শীর্ষ সুবিধাগুলোর একটি হল, ‘তাঁরা জানেন যে জীবন হলো কার্যকর পরিকল্পনাগুলির একটি গৌরবময় সমষ্টি।’

 

সাধারণত, আমরা যখন কোনো ব্যবসা শুরু করি তখন নির্দিষ্ট কিছু মূলধন বিনিয়োগ করতে হয়। সেক্ষেত্রে আমারা সাবধানতা অবলম্বন করার চেষ্টা করি। কারণ এতে ঝুঁকি থাকে। কোনো কারণে যদি ব্যবসায়ে লোকসান হয় তাহলে ব্যবসায়ের সাথে সাথে মূলধনও হারাতে হবে। তাই, প্রশিক্ষকরা কখনো আপনাকে দ্রুত বিনিয়োগ করতে উৎসাহ দিবেন না। তারা প্রথমত একটি কর্ম পরিকল্পনা সরবরাহ করবেন যা আপনি ধাপে ধাপে আপনার কর্মজীবনে কাজে লাগাতে পারবেন। তাই এক্ষেত্রে অধিক ঝুঁকি না নিয়ে একজন ভালো পরামর্শক খুঁজে নেওয়া অধিক যুক্তিযুক্ত। ফলস্বরূপ, আপনি কম ঝুঁকিতে অনেক বেশি অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। সুতরাং একজন প্রশিক্ষকের একটি ছোট ধারণা আপনাকে ব্যবসায়ে পছন্দসই ফলাফল দিতে পারে।

 

আলবার্ট আইনস্টাইন বলেছেন, “আমরা যে গুরুত্বপূর্ণ সমস্যার মুখোমুখি হই, সেগুলি একই স্তরের চিন্তাভাবনায় সমাধান করা যায় না”

 

অর্থাৎ, কিছু কিছু ব্যতিক্রম বিষয় আছে যেগুলো আমাদের সাধারণ মানসিকতা দিয়ে সমাধান করা যায় না। তার জন্য দরকার হয় অভিজ্ঞ ব্যক্তির। যেমন, একজন ব্যক্তি যখন কোনো ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান গঠন করার কথা ভাবে তখন তাকে কিছু অভিজ্ঞ ব্যক্তির স্মরণাপন্ন হতে হয়। যার ফলে ঝুঁকি প্রবণতা কমে যায়। এক্ষেত্রে আইনস্টাইনের এই উক্তিটি খুব কার্যকর, কারণ আপনি এটির মধ্যে আপনার জীবনের চিত্রটি পরিষ্কারভাবে দেখতে পাবেন।

 

কাজের প্রতি আরো দায়বদ্ধতা প্রকাশ

 

জীবনে পথ প্রদর্শকের সর্বাধিক সুবিধাগুলির মধ্যে একটি হলো, তারা আপনাকে অনুপ্রাণিত করবে যে আপনি যদি সঠিক কৌশলগুলি ব্যবহার করেন তবে আপনি সঠিক ফলাফল অর্জন করতে পারবেন। যেমন: স্কুল জীবনে প্রত্যেক ছাত্রছাত্রী লেখাপড়ার প্রতি আগ্রহী থাকে। কারণ তারা জানে যে পরদিন ঠিকই শিক্ষকের কাছে জবাবদিহি করতে হবে। ঠিক তেমনি, একজন প্রশিক্ষক অথবা পরামর্শক থাকলে তিনি আপনাকে সেই বিষয়টি সম্পর্কে সুনির্দিষ্ট জ্ঞান দিবেন এবং কাজ করার জন্য তাগাদা দিবেন। যার ফলে আপনার মধ্যে একধরণের আগ্রহ কাজ করবে এবং আপনি সেই কাজটি আগ্রহের সাথে সুন্দরভাবে সম্পাদন করতে পারবেন।

 

তাছাড়া আমাদের মধ্যে অধিকাংশ মানুষ জানেন যে তার কী করা উচিত, আবার অনেকে জানে না। এক্ষেত্রে একজন পথ প্রদর্শকের পরামর্শ নেওয়া জরুরী। কারণ, তিনি আপনাকে কিছু আবিস্কার করার সুযোগ দিবেন এবং আপনাকে বুঝিয়ে দিবেন যে উন্নতি করার একমাত্র উপায় হল সঠিক পদক্ষেপ নেওয়া। যখন আপনি কেবল নিজের কাছে দায়বদ্ধ থাকেন, তখন আপনি নিজের মাঝে বিভিন্ন অজুহাত নিয়ে এসে বলতে পারেন কেন আপনি এটা করেন নি! কারণ এতে বাধা দেওয়ার কেউ নেই। কিন্তু প্রশিক্ষকের কাছে জবাবদিহি করতে হলে কোনো জিনিসই বাদ দেওয়া যায় না। বরং একটা ভয় থাকে যে আমাকে এই বিষয়ে জিজ্ঞেস করা হবে। সুতরাং, আপনি একটি কাজে বিলম্ব করতে, অজুহাত দেখাতে এবং আপনার নিজের উদ্যোগের জন্য দায়বদ্ধ না মনে করার অভ্যাস থেকে বেড়িয়ে আসতে হবে।

 

নিজের সর্বোচ্চটা অর্জনে সহায়তা

 

আমরা সকলেই চাই জীবনের সর্বোচ্চ লক্ষ্যে পৌঁছাতে। কিন্তু শুধুমাত্র কিছু ভুল পদক্ষেপের কারণে অনেকেই তা পারি না। আমাদের জীবনটা পরিবর্তনশীল। তাই মাঝে মাঝে মনে হয় পরিস্থিতি সম্পূর্ণ আমাদের প্রতিকূলে, আমাদের পক্ষে কিছুই করা সম্ভব না। কিন্তু বাস্তবতা হলো, আমরা যা চাই তা পাওয়ার মতো মানসিক শক্তি আমাদের নেই। তাই সেটা অর্জনের চেষ্টা না করে অযথা পরিবেশকে দোষারোপ করি। কারণ, আমাদের নিজেদের মধ্যে আত্মবিশ্বাস নেই। কিন্তু একজন অভিজ্ঞ প্রশিক্ষক আপনাকে বুঝতে সাহায্য করবেন সত্যিই জীবন থেকে আপনি কী চান। তিনি আপনার জন্য পরিকল্পনা তৈরি করবেন যাতে আপনার এসব বিষয়গুলোর প্রতি নিয়ন্ত্রণ থাকে। যার ফলে, যখন আপনি আপনার কাজের দায়বদ্ধতা গ্রহণ শুরু করবেন তখন জীবনের সমস্ত ঘটনাগুলি নির্দিষ্ট কার্যক্রমের মধ্যে গড়ে উঠবে। পথ প্রদর্শকগুলো আপনার স্ব-আবিস্কারের দায়িত্ব নেয় এবং আপনার ব্যক্তিত্বের সেরা বৈশিষ্ট্যগুলো খুঁজে বের করে।

 

ব্রায়ান ট্রেসি বলেন, “আপনি যদি নিজেকে একটি সম্পদে পরিণত করতে চান, তবে আপনার আয়ের ৩% সবসময় নিজের জ্ঞান ও দক্ষতার উন্নয়নের পেছনে খরচ করুন।”

 

বিশ্বের বিখ্যাত ব্যক্তি যেমন: টাইগার উডস, মাইকেল জর্ডান, বারাক ওবামা, ওয়েইন গ্রেটস্কি, ল্যান্স আর্মস্ট্রং, অপরাহ উইনফ্রে, ডোনাল্ড ট্রাম্প, বিল গেটস, ওয়ারেন বুফে, রিচার্ড ব্রান্সন, টনি রবিনস, আর্নল্ড শোয়ার্জেনেগার, এবং পৃথিবীর শীর্ষস্থানীয় বিনোদনকারী, সঙ্গীতজ্ঞ, অভিনেতা, উদ্যোক্তা, বিনিয়োগকারী এবং নেতাদের সকলের প্রশিক্ষক বা পথ প্রদর্শক রয়েছে। সুতরাং, আমাদের প্রত্যেকের জীবনকে সফলতার শীর্ষে পৌঁছাতে হলে পথ প্রদর্শকের গুরুত্ব অপরিসীম।

Iffat Jahan

More Posts

Follow Me:
facebook LinkedIn twitter