যেকোনো সম্পর্ক থেকে প্রত্যেকেরই যে ২০টি জিনিস পাওয়া উচিত

আপনি কি মনে করেন আপনি একটি ভালো সম্পর্কে আছেন? একটি ভালো সম্পর্ক একজনের ভেতর থেকে সেরা গুণগুলো বের করে আনে, দুজনকে আরো সুখী, আরো খোলামেলা, ভালবাসায় পূর্ণ আর গ্রহণযোগ্য করে তোলে।

 

অপরদিকে একটি খারাপ সম্পর্ক একজনের অনুভূতিকে নষ্ট করে দিতে পারে। চলুন জেনে নেই এমন ২০ টি জিনিস যা কোনো সম্পর্কে প্রত্যেকেরই পাওয়া উচিত।

 

১. হাস্যোচ্ছ্বলতা

 

হয়তো আপনার সঙ্গীর সেন্স অফ হিউমর আপনার থেকে একেবারেই আলাদা, কিন্তু তারপরও তিনি আপনাকে হাসাতে পারবেন। একজনকে ভালোবাসা মানে তাকে খুশি দেখতে চাওয়া, তাই একটি সুখী সম্পর্ক সাধারণত পেট ফাটানো হাসি আর নিজেদের মাঝের ছোটখাট কৌতুকে ভরে থাকে।

 

 

২. এমন কেউ যার সাথে নতুন নতুন অভিজ্ঞতা তৈরি করা যায়

 

আপনার শহরের যে রেস্টুরেন্টটাতে আপনি কোনোদিন খেতে যান নি, অথবা পৃথিবীর অপর প্রান্তে যে দেশে যাবার স্বপ্ন আপনি ছোট্টবেলা দেখেছিলেন-এমন সব অদ্ভুত অভিজ্ঞতার সুযোগে ভরে আছে আপনার চারদিক। একটি সুন্দর সম্পর্কে দুজন মানুষ একজন আরেকজনের সাথে এই অভিজ্ঞতাগুলো ভাগ করে নিতে চায়। তারা কখনোই নিজেদেরকে কোনো গণ্ডির মাঝে বেঁধে রাখে না।

 

৩. নিরাপত্তার অনুভূতি

 

সম্পর্কে সুখী হওয়ার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হচ্ছে নিজের সঙ্গীর ওপর ভরসা করতে পারা। অামরা সবাই কখনো না কখনো খারাপ সময়ের মধ্য দিয়ে যাই। এমন দিনগুলোতে যদি আপনি আপনার সঙ্গীকে হারানোর ভয় না পেয়ে নিশ্চিন্তে তাকে সব কথা বলতে পারেন, হয়তো তার ওপর আপনার রাগও ঝাড়তে পারে – তবে হ্যাঁ, আপনি সঠিক মানুষটিকেই বেছে নিয়েছেন।

 

৪. এমন কেউ যে সবসময় আপনার সাথে সময় কাটাতে আগ্রহী

 

কয়েক বছর একসাথে থাকার পর হয়তো আপনাদের আর সেই প্রথম দেখায় আবেগাপ্লুত হয়ে যাওয়ার অনুভূতি থাকবে না, কিন্তু তখনো আপনাদের একে অপরের সাথে সময় কাটানোর সুযোগ পেলে আনন্দিত এবং উৎসাহী হওয়া উচিত। এমনকি যখন আপনার মন খারাপ থাকবে, তখনো তার সাথে সময় কাটানোর কথা ভেবে আপনার ভালো অনুভব করা উচিত।

 

৫. আবেগ

 

সম্পর্কে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে আপনার সঙ্গীকে ভালোবাসা। যদি আপনারা অনেক সময় কাটানোর সুযোগ নাও পান, তাও আপনাদের একে অপরকে সবসময় বোঝানো উচিত যে আপনাদের মাঝে যথেষ্ট ভালোবাসা এবং আকর্ষণ আছে।

 

 

৬. সারা রাত জেগে কাটিয়ে দেওয়ার জন্য একজন সঙ্গী

 

হয়তো আপনারা রাত জেগে আপনাদের পছন্দের মুভি দেখতে পারেন অথবা হয়তো শুধু বারান্দায় পাশাপাশি বসে আকাশের দিকে তাকিয়ে থাকতে আর গল্প করতে পারেন। মাঝে মাঝে আপনার সঙ্গীর উচিত এরকম কিছু করে আপনার সাথে একটু বেশি সময় কাটানোর সুযোগ তৈরি করা, একটু ভালো সময় কাটানোর চেষ্টা করা।

 

৭. এমন কেউ যে আপনার জন্য চ্যালেঞ্জ তৈরি করতে পারে

 

একটি সুখী সম্পর্কে দুজনই একে অপরের প্রায় সবকিছুই পছন্দ করে এবং একে অপরের প্রশংসা করে। আপনার সঙ্গী হিসেব এমন কাউকেই পাওয়া উচিত যে আপনার সামনে চ্যালেঞ্জ দাঁড় করাতে পারবেন এবং আপনাকে এগিয়ে যেতে সাহায্য করবেন।

 

৮. ভালোবাসার ছোট ছোট প্রকাশ

 

আপনার জন্য আপনার পছন্দের খাবার তৈরি করা বা জন্মদিনে নিজের হাতে একটি কার্ড বানিয়ে দেয়া – এরকম ছোট ছোট জিনিসগুলো আপনাদের একে অপরের জন্য ভালবাসা প্রকাশ করে। এই কাজগুলো আপনার সঙ্গীকে এটা বুঝতে সাহায্য করবে যে আমি সবসময় তার কথা ভাবেন এবং তাকে ভালোবাসেন।

 

 

৯.  বোঝাপড়া

 

হয়তো আপনি প্রতিবার রোম্যান্টিক মুভি দেখার সময় কাঁদেন, অথবা হয়তো আপনি চায়েডুবিয়ে বিস্কিট খেতে পছন্দ করেন। আমাদের সবারই কিছু অদ্ভুত অভ্যাস থাকে এবং আপনার সঙ্গীর সেটা বুঝতে হবে। যদি তিনি আপনার সাথে এগুলো করতে নাও চান তারপরও তার বোঝা উচিত যে এই অদ্ভুত অভ্যাসগুলো নিয়েই আপনি। এই প্রতিটি অভ্যাসকে তার ভালোবাসা উচিত।

 

১০. এমন একজন যার সাথে যে কোনো পাগলামী করা যায়

 

আপনার সঙ্গীর সাথে ছোট খাট পাগলামী করতে পারা আর ছোট ছোট মুহূর্তগুলোকে একেবারে নিজের মতো করে উপভোগ করতে পারা খুবই জরুরী। ছোটখাট খুনসুটির মধ্যে দিয়ে কঠিন সময়েও একজন আরেকজনের সঙ্গ উপভোগ করার চেষ্টা করা উচিত।

 

১১. এমন একজন যে আপনাকে সবসময় সাহস যোগাবে

 

একটি চমৎকার সম্পর্ক তখনই তৈরি হয় যখন একজন আরেকজনকে সব অবস্থায় সাহস যোগাতে পারে। কারোর সহায়তা ছাড়া বেঁচে থাকা সত্যিই কঠিন। আপনার সঙ্গীর উচিত প্রত্যেকটা সিদ্ধান্তে আপনাকে সহায়তা করা।

 

১২. বিশ্বাস

 

আপনার সঙ্গীর এটা কখনোই ভাবা উচিত নয় যে আপনি তাকে কোনোভাবে ধোঁকা দেবেন। আপনারা একজন আরেকজনকে ভালোবাসেন এবং বিশ্বাস তার একটি মূল্যবান অংশ।

 

 

১৩. সম্মান

 

একটি সুন্দর সম্পর্কে দুজনই একে অপরকে সম্মান করেন। যাকে আপনি আপনার সঙ্গী হিসেবে বেছে নিয়েছেন নিশ্চয়ই তিনি চমৎকার একজন মানুষ বলেই বেছে নিয়েছেন তাকে।

 

১৪. নিয়ম ভাঙ্গার সঙ্গী

 

সিনেমা হলে লুকিয়ে লুকিয়ে ছবি তোলা থেকে শুরু করে আপনার মা অথবা বসকে মিথ্যা অজুহাত দেখালো পর্যন্ত সব অনিয়মের সঙ্গী হওয়া উচিত আপনার ভালোবাসার মানুষটির।

 

১৫. স্বাধীনতা

 

একটি সুস্থ সম্পর্কে দুজনই বোঝে যে তাদের প্রত্যেকেরই স্বাধীনতা এবং নিজের কাজ করার মতো সময় দরকার। তারা একজন আরেকজনের ওপর কোনোকিছু চাপিয়ে দেয় না।

 

১৬. এমন একজন যে আপনার পক্ষে কথা বলবে

 

একটি খারাপ দিন পাড় করার পর হয়তো আপনি নিজেও নিজের ওপর বিশ্বাস হারিয়ে ফেলবেন। কিন্তু যদি আপনি একটি সুখী সম্পর্কে থাকেন, তাহলে আপনার সঙ্গীর স অবস্থায়ই আপনার ওপর দৃঢ় বিশ্বাস থাকা উচিত।

 

১৭. এমন একজন যার সাথে আপনি মন খুলে কথা বলতে পারবেন

 

আপনার অফিসের নতুন কলিগ তার কাজে একেবারেই যা তা, এবং আপনার সঙ্গীর এটা নিয়ে আপনার ৩ ঘণ্টার দীর্ঘ বক্তৃতা আনন্দের সাথে শোনা উচিত। আপনাকে চুপ করতে না বলে বরং তিনি একটি সুন্দর হাসি নিয়ে আপনাকে চায়ের কাপ এগিয়ে দেবেন। কারণ তিনি জানেন তার খারাপ সময়েও আপনি এভাবেই তার পাশে থাকতেন।

 

১৮. আকর্ষণ

 

হাত ধরাধরি করে রাস্তায় হাঁটা বা মুগ্ধ চোখে একে অপরের দিকে তাকিয়ে থাকা – আপনার সঙ্গীর উচিত এই কাজগুলোর মাধ্যমে আপনার প্রতি তার ভালো লাগাকে প্রকাশ করা।

 

 

১৯. উন্মুক্ত যোগাযোগ

 

যোগাযোগ একটি সম্পর্কের অনেক গুরুত্বপূর্ণ অংশ, এবং আপনার এবং আপনার সঙ্গীর দুজনেরই মনে করা উচিত যে আপনারা একে অপরের সাথে যে কোনো বিষয়ে কথা বলতে পারেন।

 

২০. একজন ভালো বন্ধু

 

আপনার সঙ্গীর হওয়া উচিত আপনার ভালোবাসার মানুষের চেয়েও একটু বেশি কিছু। তার হওয়া উচিত আপনার সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ বন্ধু, যা আপনাদের সম্পর্ককে আরো শক্তিশালী করবে এবং আপনারা একজন আরেকজনকে নিঃশর্তভাবে ভালোবাসতে পারবেন।

 

 

আপনি যেমন আপনার সম্পর্ক থেকে এই সবকিছু পাওয়ার অধিকার রাখেন, ঠিক তেমনই আপনার সঙ্গীরও এই সবকিছু পাওয়া উচিত। দুজনেই একজন আরেকজনের এভাবেই খেয়াল রাখার চেষ্টা করুন, আপনাদের সম্পর্ক হয়ে উঠবে আরো সুন্দর।  

 

 

https://www.facebook.com/spikestoryOfficial/videos/507190866286386/

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *